সিনেমা বাঁচাতে হলে প্রেক্ষাগৃহে যেতে হবে: তিশা

chattogramnews    ১২:০২ এএম, ২০১৯-১০-১১    67


সিনেমা বাঁচাতে হলে প্রেক্ষাগৃহে যেতে হবে: তিশা

২০০৯ মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’র মাধ্যমে প্রথমবার বড় পর্দায় নিজেকে মেলে ধরেন নন্দিত অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। তবে অভিনয়ে নিয়মিত থাকলেও প্রথম সিনেমার পর খুব কমই বড় পর্দায় তাকে পাওয়া গেছে। গত ১০ বছরে তিশার মাত্র ৬টি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। মুক্তির প্রতীক্ষায় রয়েছে একটি।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) মুক্তি পেয়েছে ‘ডুব’খ্যাত এই অভিনেত্রীর অষ্টম সিনেমা ‘মায়াবতী’। অরুণ চৌধুরী পরিচালিত সিনেমাটি একযোগে সারাদেশে ২২টি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে। ‘মায়াবতী’ ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে মুখোমুখি হয়েছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা।

‘মায়াবতী’ নিয়ে কিছু বলুন...
নুসরাত ইমরোজ তিশা: ‘মায়াবতী’র গল্প মায়া দিয়ে ঘেরা। ‘না মানে না’, প্রত্যেক মানুষের না বলার অধিকার আছে এবং সেই ‘না’কে সবার সম্মান করা উচিত। এই মেসেজটার উপর ভিত্তি করেই মূলত ‘মায়াবতী’ নির্মাণ করা হয়েছে। এর পাশাপাশি সিনেমাটিতে গান, নাচ, ভালোবাসা এবং সংঘাতও দর্শক দেখতে পাবেন। আমি চাই দর্শকরা প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে সিনেমাটি দেখুন। তাহলেই সিনেমাটি সম্পর্কে বুঝতে পারবেন।

‘মায়াবতী’র প্রচারণায় কেমন সময় দিচ্ছেন?
নুসরাত ইমরোজ তিশা:
আমার প্রত্যেক সিনেমা মুক্তির আগেই আমি প্রচারণায় অনেক সময় দেই। একটি ভালো সিনেমা আসছে, সেটা যদি মানুষ না জানে তাহলে তো তারা প্রেক্ষাগৃহে আসবেন না।   

 ২২টি প্রেক্ষাগৃহে ‘মায়াবতী’ মুক্তি পেয়েছে। প্রেক্ষাগৃহ সংখ্যা কম হয়ে গেলো না?
নুসরাত ইমরোজ তিশা:
 আমরা প্রেক্ষাগৃহ কম পেয়েছি বললে ভুল হবে, আমরা কম নিয়েছি। আমাদের পরিচালকই চেয়েছেন প্রেক্ষাগৃহ কম দিয়ে শুরুটা করতে। এইটুকু আমি জানি। তবে প্রেক্ষাগৃহ বেশি পেলেই যে সিনেমা অনেক বিখ্যাত হবে, এমনটি আমি বিশ্বাস করি না। আমি বিশ্বাস করি একটা ভালো গল্প থাকলে সিনেমাটি অনেক বেশি বিখ্যাত হবে বা অনেক বেশি মানুষের কাছে যাবে।

 সিনেমাটিতে ইয়াশ রোহান আপনার বিপরীতে কাজ করেছেন। তিনি আপনার অনেক জুনিয়র। তার সঙ্গে কাজ করে কেমন লেগেছে?
নুসরাত ইমরোজ তিশা:
ওর সঙ্গে কাজ করে অনেক ভালো লেগেছে। ও অভিনয় প্রশিক্ষণ নিয়ে কাজ করতে এসেছে। ইয়াশের বাবা একজন বিখ্যাত পরিচালক ও চিত্রনাট্যকার (নরেশ ভূঁইয়া) এবং তার মা একজন ভালো অভিনেত্রী (শিল্পী সরকার অপু)। তাই ইয়াশের অভিনয় নিয়ে আমি কিছু বলতে চাই না। তবে একজন মানুষ হিসেবে সে অনেক ভালো। কাজ করে আমার খুব ভালো লেগেছে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, বাদাম খেতে খেতে আমাদের শুটিংয়ের কাজ যে কখন শেষ হয়ে গেছে, আমরা কেউই তা টের পাইনি। এখন আমরা দু’জন খুব ভালো বন্ধু।
 

সিনেমাটির জন্য আপনাকে দৌলতদিয়ার রেড লাইট এরিয়াতে শুটিং করতে হয়েছে। সে অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?
নুসরাত ইমরোজ তিশা:
এর আগেই দৌলতদিয়া আমি শুটিং করেছি। এবার তৃতীয়বারের মতো কাজ করলাম। সেখানে কাজ করে অবশ্যই খুবই ভালো অভিজ্ঞতা। আসলে দৌলতদিয়া নিয়ে অনেকে অনেককিছু মনে করেন। কিন্তু বিষয়টি তেমন না। তারা (যৌনকর্মী) খুব সাধারণ আর দশজন মানুষের মতোই। অন্যদের মতো তারাও একটা কাজের মধ্যে থাকে, হয়তোবা তাদের কাজের ধরনটা অনেক ভিন্ন। আমাদের শুটিং অনেকদিন ধরে সেখানে করা সম্ভব হয়েছে কেবল তাদের সমর্থন ও সহযোগিতার কারণেই। ‘মায়াবতী’ তাদের উৎসর্গ করা উচিৎ। কারণ তারা সমর্থন না দিলে আসলে এতো সুন্দর করে সিনেমাটি করা সম্ভব হতো না। 

আপনি সিনেমাটিতে মায়া চরিত্রে অভিনয় করেছেন। চরিত্রটি করতে দৌলতদিয়াবাসীর ভূমিকা কেমন ছিল?
নুসরাত ইমরোজ তিশা:
অবশ্যই তাদের অনেক ভূমিকা আছে। শুধু তাদের নয়, আমার পুরো ইউনিটের ভূমিকা আছে। চরিত্রটি করতে গিয়ে একাই যে আমাকে প্রস্তুতি নিতে হয়েছে বিষয়টি তা নয়। আমার পরিচালক থেকে শুরু করে সহশিল্পী এবং পুরো টিম যদি আমাকে সাহায্য না করতো, তাহলে চরিত্রটি রূপদান করা সম্ভব ছিল না। দৌলতদিয়াবাসীর সাপোর্ট অনেক ছিল। তাদের পরিবেশে শুটিং হওয়ার কারণে আমার চরিত্রে ঢুকতে খুব সুবিধা হয়েছে।

অরুণ চৌধুরীর সঙ্গে কাজ করে কেমন লেগেছে?
নুসরাত ইমরোজ তিশা:
তিনি একজন সিনিয়র পরিচালক। অবশ্যই সিনিয়র পরিচালকদের সঙ্গে সবসময় কাজ করতে ভালো লাগে। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে উনি সিনিয়র পরিচালক বলে যে আমার কোনো কথা শোনেননি, এমনটি কিন্তু নয়। আমাদের মধ্য খুব ভালো শেয়ারিং ছিল। যখন যেটা শেয়ার করেছি উনি তা বিবেচনা করেছেন এবং সে অনুযায়ী চেষ্টা করেছেন যুক্তিসঙ্গতভাবে যতটুকু করা যায়। তিনি খুব ভালো এবং আন্তরিক একজন পরিচালক।

 দর্শকের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন।
নুসরাত ইমরোজ তিশা:
দর্শকদের প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে সিনেমা দেখতে হবে, তারা যদি সিনেমা বাঁচাতে চায়। কারণ সিনেমা বানানোই হয় দর্শকদের জন্য। প্রথমত প্রেক্ষাগৃহে এসে দর্শকদের সিনেমা দেখতে হবে। দ্বিতীয়ত, ‘মায়াবতী’ দেখতে হবে, কারণ সিনেমাটি দেখা উচিৎ। এটি দর্শকদের জন্য এবং তারা সিনেমাটিতে নিজেদের খুঁজে পাবেন, মেসেজসহ সুন্দর একটি গল্পও দেখতে পাবেন।


রিটেলেড নিউজ

এক নজরে এবারের মিস ওয়ার্ল্ড তোরসা

এক নজরে এবারের মিস ওয়ার্ল্ড তোরসা

chattogramnews

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯’ বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হয়েছে। এই আসরে ৩৭ হাজ... বিস্তারিত

দুই বছর পর ফারিয়া

দুই বছর পর ফারিয়া

chattogramnews

বেশ কিছুদিন হলো মালয়েশিয়া থেকে দেশে এসেছেন মডেল ও অভিনেত্রী ফারিয়া শাহ্‌রীন। মালয়েশিয়ার এশিয়া প... বিস্তারিত

শুটিং এ ব্যস্ত মৌসুমী

শুটিং এ ব্যস্ত মৌসুমী

chattogramnews

   বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন আসন্ন। ২৫ অক্টোবর বাংলাদ... বিস্তারিত

ভক্তদের ফোনের অপেক্ষায় থাকবেন পূর্ণিমা!

ভক্তদের ফোনের অপেক্ষায় থাকবেন পূর্ণিমা!

chattogramnews

ঢাকাই চলচ্চিত্রের এক সময়ের তুমুল জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা। এ জীবন তোমার আমার, নিঃশ্বাসে তুম... বিস্তারিত

জীবনের প্রায় সব পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন তোরসা

জীবনের প্রায় সব পরীক্ষায় প্রথম হয়েছেন তোরসা

chattogramnews

৩৭ হাজারের বেশি প্রতিযোগী টপকে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৯’ হয়েছেন রাফাহ নানজীবা তোরসা। শুক্রব... বিস্তারিত

‘মুখোশ’-এর আড়ালে কে?

‘মুখোশ’-এর আড়ালে কে?

chattogramnews

দুষ্টু-মিষ্টি বা নস্টালজিক চরিত্রেই এতদিন দেখা গিয়েছে তাঁকে। এবার একটু স্বাদ বদল।চর... বিস্তারিত

সর্বশেষ

আবরারের খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে: প্রধানমন্ত্রী

আবরারের খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে: প্রধানমন্ত্রী

chattogramnews

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) নিহত শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্ত... বিস্তারিত

সম্রাটের ২ মামলা ডিবিতে হস্তান্তর

সম্রাটের ২ মামলা ডিবিতে হস্তান্তর

মোঃ মতিউর রহমান

যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিস্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী ওরফে সম্রাটের বিরুদ্ধে অস্... বিস্তারিত

পেঁয়াজের দামে লাগাম টানতে ফের অভিযান: ডিসি

পেঁয়াজের দামে লাগাম টানতে ফের অভিযান: ডিসি

chattogramnews

পেঁয়াজের দামে লাগাম টানতে পাইকারি ও খুচরা বাজারে জেলা প্রশাসন ফের অভিযান চালাবে বলে জানিয়েছেন ... বিস্তারিত

ফাঁসছেন ইন্সপেক্টর রেফায়েত

ফাঁসছেন ইন্সপেক্টর রেফায়েত

chattogramnews

কুমিল্লার লাকসাম থানাধীন সাতবাড়িয়া গ্রামের রেফায়েত উল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে ১৯৯৯ সালের ৩০ সেপ্টেম... বিস্তারিত