অভিনব এক ট্রাক চোর গ্রেপ্তার!

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

নগরীতে জলজ্যান্ত একটি বড় পিআপ গাড়ি চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় অভিনব এক যুবক চোর কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বিষয়পি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মুহাম্মদ মুহসীন।

১৮ মে রাত অনুমান ২টার সময় কোতোয়ালী থানাধীন বিআরটিসি ফলমন্ডিস্থ বসুধা বিল্ডার্স এর সামনে থেকে তাকে আটক পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত আসামী হলেন ১। মোঃ আলমগীর হোসেন প্রঃ আলম (২৬), পিতা-আব্দুর রশিদ, মাতা-শাহনাজ বেগম, গ্রাম-সৈয়দ বাড়ী, রাজারহাট ইউপি, ৮নং ওয়ার্ড, থানা-রাঙ্গুনিয়া, জেলা-চট্টগ্রাম।

আসামী একজন পেশাদার চোর। সে দীর্ঘদিন ধরে চুরি পেশায় জড়িত। যেকোন গাড়ীর চাকা, ব্যাটারী নিমিষেই সে চুরি করে নিজের আয়ত্বে নিতে পারে।

ঘটনা সুত্রে জানা যায়, ১৮ মে রাত ২টার সময় কোতোয়ালী থানাধীন তিন পুলের মাথা গোলাম রসূল মার্কেট এর সামনে পাকা রাস্তার উপর ভাড়ার জন্য অপেক্ষা করে ড্রাইভার তৌহিদুল ইসলাম। মোঃ সুমন (২৪) কেরানী হাট যাওয়ার জন্য বাদীর চালিত পিকআপ চট্টমেট্টো-১১-৭২৫১ গাড়ীটি ভাড়া করে। গাড়ীতে উঠে মালামাল নেওয়ার জন্য কোতোয়ালী থানাধীন বিআরটিসি ফলমন্ডিতে যাওয়ার জন্য বলে। কথা মতো ড্রাইভার বিআরটিসি বসুধা বির্ল্ডাস বিল্ডিং এর সামনে গাড়ী পার্কিং করে রেখে সুমনের সাথে যাওয়ার জন্য বলে।

ড্রাইভার ও সরল বিশ্বাসে মালামাল আনার জন্য গেলে মালামাল ভ্যান গাড়ীতে ওঠানোর কথা জানায় এবং ড্রাইভারকে একটু পান খেয়ে আসার কথা বলে স্থান ত্যাগ করে কৌশলে পুনরায় পিকআপে যায়। এমনকি গাড়ীতে থাকা সহকারী শফি আলম (১৬) কে সময় সিগারেট আনার জন্য দোকানে পাঠিয়ে পরক্ষণে পিকআপ চট্টমেট্টো-১১-৭২৫১ গাড়ীটি চুরি করে নিয়ে যেতে থাকে।

পিকআপ নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় বাদীর সহকারী শফি আলম (১৬) দেখতে পেয়ে চিৎকার করলে আশেপাশের লোকজন ও টহল পুলিশ টিমের এএসআই শহিদুল ইসলাম মোল্লা ও তার ফোর্স দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আসামীকে আটক করেন।

টহল পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আসামী তার নাম ঠিকানা প্রকাশ সহ ঘটনাস্থল হতে পিকআপ চট্টমেট্টো-১১-৭২৫১ গাড়ীটি চুরি করে নিয়ে নেওয়ার চেষ্টার কথা স্বীকার করে।

ড্রাইভার তৌহিদুল ইসলাম বাদি হয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালী থানায় চুরি চেষ্টা করার অপরাধে দঃ বিঃ আইনে ১টি মামলা রুজু করেন।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মুহাম্মদ মুহসীন জানান, গ্রেফতারকৃত আসামী বিভিন্ন ড্রাইভারদের সাথে প্রথমে সখ্যতা গড়ে তোলে। সেই সখ্যতার সুযোগ নিয়ে কৌশলে গাড়ী, গাড়ির চাকা, ব্যাটারী ও মোবাইল ফোন চুরি করে নিয়ে যেত। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

মাদক থেকে শিশু কিশোরদের দুরে রাখতে ১৮ বছর দু’যুবকের পথচলা

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

বামে মাঠে বসা ১ম জন হারুনুর রশিদ পাটোয়ারী

জাগতিক নিয়মে বেশির ভাগ মানুষ নিজ নিজ কর্মব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। শিশু কিশোরদের জীবন ও শারিরিক শক্তি এবং মানসিক চিন্তা চেতনায় বুদ্ধিমত্তা বিকাশের জন্য কেউ না ভাবলেও এগিয়ে এসেছেন কর্ণফুলীর দুজন তরুণ যুবক। যারা কিশোরদের নিয়ে ১৮ বছর ধরে বন্ধুর পথে হাঁটছে।

কর্ণফুলী উপজেলার খোয়াজনগর এলাকার কর্ণফুলী উপজেলা ক্রিকেট একাডেমীর চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী ও প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সালাহ্ উদ্দীন আহমেদ। প্রাত্যহিক জীবনের পাশাপাশি শিশু কিশোরদের লেখাপড়ার ফাঁকে বিভিন্ন রকমের খেলাধুলায় আকৃষ্ট করতে তাদের চেষ্টা। মনস্তাত্তিক পরিবর্তনে মাদক থেকে কিশোরদের দুরে রাখতেই তারা সংগ্রাম করে চলেছেন।

বর্তমানে কর্ণফুলীতে শিশু কিশোরদের মাঝে ক্রীড়া সংগঠক ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব হিসেবে তাঁরা বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। ডিজিটাল যুগে শিশু কিশোরদের অধিকাংশ স্কুল কলেজ শেষে বন্ধুদের সাথে আড্ডায় থাকে কিংবা প্রযুক্তি পণ্যে ব্যবহার করে সময় কাটায় ।

অনেক কোমলমতি শিশু-কিশোর খারাপ বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে মাদকের দিকে ঝুঁকে পরছে। মাদকে আসক্ত না হয়ে তারা যেন লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলায় মননিবেশ করে নিজেদের শারিরিকভাবে সুস্থ্য ও মেধাবিকাশে মনোযোগী হতে পারে।

টিমের সাথে নেতৃত্ব দিচ্ছেন দুজন

সেই লক্ষে হারুনুর রশিদ পাটোয়ারী ও সালাহ্ উদ্দীন আহমেদ এর মতো দুই তরুণের চেষ্টা আর সংগ্রাম চলছেই। তাঁরা চায় শিশু-কিশোররা যেন নানামূখী খেলাধূলার মাধ্যমে আনন্দ খুুঁজে পায়। অনেক প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে কর্ণফুলী উপজেলা ক্রিকেট একাডেমীর মাধ্যমে বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও শিশু-কিশোরদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ বিনির্মানে কাজ করে যাচ্ছেন তাঁরা দুজন।

খেলাধুলা করার ফলে শিশু কিশোরদের দৈহিক ও মনগত চিন্তায় পরিবর্তন আসে এটাই বিশ্বাস করেন এই দুই যুবক। কর্ণফুলী এলাকার শিশু কিশোরদের মাঝে খুঁেজ চলেছেন আগামী দিনের তামিম, শাকিব আর মেসিদের। প্রতিভা থাকলে চর্চার মাধ্যমেই সেটা জ্বলে উঠবে এটাই তাদের বিশ্বাস।

কর্ণফুলী উপজেলা ক্রিকেট একাডেমীর চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী বলেন, ‘খেলাধুলা করার ফলে শিশু-কিশোরদের মনে দলবদ্ধ ভাবে কাজ করার মনমানসিকতা তৈরি হয়। পড়াশোনার পাশাপাশি যদি পর্যাপ্ত খেলাধুলা করে তাহলে প্রত্যেকের মানসিক চিন্তার বিকাশ সাধন হবে। খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমেই শিশুর ভেতরের সুপ্ত প্রতিভা জাগিয়ে তোলা সম্ভব।

অন্যদিকে একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও অন্যতম কর্ণধার সালাহ্ উদ্দীন আহমেদ বলেন, ‘শিশুদের কচি মনে হাজারো স্বপ্ন ও হাজারো গল্পের বুনন। হাজারো স্বপ্ন হারিয়ে যাচ্ছে পড়ালেখার চাপ আর মাঠশূণ্য নগর জীবনে। অধিকাংশ এলাকায় মাঠ বলতে নেই। যদিও কর্ণফুলীতে একটি মিনি স্টেডিয়ামের বড় প্রয়োজন। কেননা দিন দিন খেলার মাঠ, খোলা জায়গা হারিয়ে যাচ্ছে কিংবা বে-দখল হয়ে যাচ্ছে প্রভাবশালী মহলের কারণে।’

তিনি আরো বলেন, ‘মাঠ কিংবা খোলা জায়গার অভাবে শিশু কিশোরেরা পারছে না খেলাধুলা করতে অথচ খেলাধুলা চিত্তবিনোদন আর আনন্দের খোরাক। চিত্তবিনোদন শূণ্যতায় অল্প বয়সেই অনেকে বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে যাচ্ছে। আমি মনে করি আগামী বাংলাদেশ তাদের হাতেই যাবে যারা আজ শিশু কিশোর আর তরুণ। সুতরাং এদের মাদকের পথ থেকে সরাতে হবে এর কোন বিকল্প নেই। অপরদিকে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই নির্মিত হচ্ছে ভবন ফলে শিশুরা পাচ্ছে না এক টুকরো সবুজ ঘাসের মাঠ।’

শিশু কিশোরদেরকে খেলাধুলায় আগ্রহী করে তুলতে প্রয়োজন বিভিন্ন স্কুল কলেজে আন্তঃপ্রতিযোগিতা। এই সব প্রতিযোগিতা থেকেই বেরিয়ে আসবে আগামী দিনের মাশরাফি, জাদুঘর সামাদ, মোনেম মুন্না, মুমিনুল আর মুশফিকেরা। এ জন্য খেলাধুলার মাধ্যমে শিশু কিশোরদের মানসিক পরিবর্তনে কার্যকরী ভূমিকা রেখে চলেছেন তারুণ্যনির্ভর প্রতিভা, অদম্য ক্রীড়া সংগঠক হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী ও সালাহ্ উদ্দীন আহমেদ।

ছোট্ট শিশুদের হাতে নানা পুরস্কার ও মুখে হাসি ফোটাতে গেলে অনেকের সহযোগিতার প্রয়োজন হয়। শিশু কিশোরদের জন্য সহজে কেহ এগিয়ে না আসলেও অনেকে আবার স্বেচ্ছায় হাত বাড়িয়ে দেয়। এমন কিছু মানুষের সার্বিক সহযোগিতা আর কষ্টের ফলে আমরা এগোতে পারছি।

যোগ করে হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী বলেন, ‘ক্রিকেট একটি ব্যয় বহুল খেলা। বর্তমানে একটা ক্রিকেট ব্যাটের দাম মধ্যবিত্ত কোন চাকরিজীবির এক মাসের বেতনের সমান। যার ব্যয়ভার বহন করতে হিমশিম খেতে হয় কর্ণফুলী উপজেলা ক্রিকেট একাডেমীর।’

বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে হলে প্রয়োজন মাঠ ব্যবস্থার উন্নতি ও শিশু কিশোর আর তরুণ প্রজন্মকে খেলাধুলার সুযোগ তৈরি করে দেওয়া। তাহলেই এগিয়ে যাবে কোটি কোটি লোকের প্রিয় বাংলাদেশ।
পাশ্ববর্তী রাষ্ট্র ভারতে বাৎসরিক ভাবে গ্রামীণ ক্রীড়ার আয়োজন করে বিভিন্ন সংগঠন। কখনও সরকারি উদ্যোগে কখনও বেসরকারি পৃষ্টপোষকতায়। কিন্ত দুঃখের বিষয় আমাদের দেশে সেরকম কোন উদ্যোগ না থাকায় হারিয়ে যাচ্ছে পুরনো সব খেলা। সারাদেশের মতো কর্ণফুলীতে একই অবস্থা বিরাজ করছে। গুটিকয়েক হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী ও সালাহ্ উদ্দীন আহমেদ এর মতো তরুণ ক্রীড়া সংগঠক এগিয়ে আসলেও তা পর্যাপ্ত নয়।

রাতে মাঠের ছবি

প্রসঙ্গত, ১৯৯৪ সালে হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী খোয়াজনগর ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (কেকেএসপি) এর মাধ্যমে ক্রীড়াঙ্গনে প্রবেশ করেন। বর্তমান স্বর্নালী গ্রুপের এমডি কামাল উদ্দিন আহাম্মেদ-এর হাত ধরে। কিশোর বয়সেই তিনি ওই ক্লাবের প্রথম ক্রীড়া সম্পাদক নির্বাচিত হন। পরবর্তী’তে ১৯৯৮ সালে দুজনই ইছানগরের সবুজ সংঘ ক্লাবের হয়ে মহানগর ক্রীড়া সংস্থার ইস্পাহানি পাইওনিওর ফুটবল টুনার্মেন্টে জেলা পর্যায়ে খেলা শুরু করেন। ২০০১ সালে পুনরায় একই টুর্নামেন্ট সাইফুদ্দিন মানিকের হাত ধরে কালারপুল ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ হয়ে অংশগ্রহণ করেন।

সমাজের নানা অপরাধ থেকে সাধারণ ছেলেদের মুক্ত করতে নিজের চাচা মরহুম পেয়ার আহাম্মেদ মেম্বারের হাতে গড়া সংগঠন ইয়াং টাইগার ক্লাবের দায়িত্ব নেন, সমাজের কিছু যুবকদের নিয়ে মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চারকণ্ঠী হয়ে প্রতিবাদ করেন, একই বছর ২০০১ সালে সাহাব উদ্দিন লন্ডনি ওনার মায়ের নামে ‘নেছা ফাউন্ডেশন ’এর মাধ্যমে ক্রিকেটে নতুন যাত্রা তৈরি করেন, যার নেতৃত্বে ছিলেন চরপাথরঘাটার সাবেক সফল ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম মঈন উদ্দীন ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ সেলিম হক।

কোচ হিসাবে ছিলেন সাইফুল্লাহ চৌধুরী এবং সর্বোপরি তাদের কে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন বর্তমান কর্ণফুলীর আরেক বর্ষিয়ান নেতা চট্রগ্রাম দক্ষিণ জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার ইসলাম আহম্মেদ।

২০০২ সালে সেই ক্রিকেট একাডেমির হাল ধরেন সালাউদ্দিন আহমেদ চেয়ারম্যান ও হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী কো-চেয়ারম্যান হিসেবে। যা ২০০২ সালে শুধুমাত্র ক্রিকেট নিয়ে চিন্তা করে গঠিত হয় কর্ণফুলী ক্রিকেট একাডেমি। যে একাডেমীতে প্রতিদিন ৬০ থেকে ৭০জন কিশোর খেলোয়াড় নিয়মিত অংশগ্রহণ করছেন। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের বহু ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে যাচ্ছেন।

খেলার মাঠে

দীর্ঘ পথচলার সুবাদে খেলোয়াড়দের আরো উচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার চিন্তা মাথা রেখে হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী ২০১৫ সিজেকেএস কাউন্সিলর আলমগীর কবির ও বর্তমান কর্নফুলী ক্লাবের স্বতাধিকারী রাশেদুর রহমান মিলন এর সহযোগিতায় চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার কাউন্সিলর হিসাবে নিয়োজিত হন। একই বছর দক্ষিণ চট্টগ্রামের আর এক ক্রীড়া সংগঠন কালারপোল ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিযুক্ত হন। তাদের হাত ধরেই ২০১৮ সালে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুনার্মেন্টে চরপাথরঘাটা ইউনিয়ন একাদশ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

খেলার প্রতি তাদের আগ্রহ দেখে চরপাথরঘাটা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম নুরুন্নবী একটা রুমের ব্যবস্থা করে দেন। যাতে খেলোয়াড়রা তাদের খেলার সরঞ্জামাদি রাখতে পারেন।

ওআইসি সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীকে সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণ

ওআইসি সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীকে সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণ

নিউজ ডেস্ক: জুন মাসের শুরুতে সৌদি আরবের মক্কায় ওআইসির ১৪তম (অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন) সম্মেলনে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ।

বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে বাদশাহর আমন্ত্রণপত্র পৌঁছে দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি আরবের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত আমির ওমর সালেম ওমর।

পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

প্রেস সচিব জানান, প্রধানমন্ত্রী আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন এবং সম্মেলনে তার উপস্থিতির বিষয়ে রাষ্ট্রদূতকে আশ্বস্ত করেছেন।

সৌদি রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, সৌদি বাদশাহ তাকে আন্তরিকতার সঙ্গে ওআইসি সম্মেলনে যোগদানের আমন্ত্রণ এবং একই সঙ্গে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী তাকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য সৌদি বাদশাহর প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সৌদি-বাংলাদেশ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে সন্তোষ প্রকাশ করে বর্তমানে দুই দেশের মধ্যে বিশেষ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ সৌদি আরবের সঙ্গে সম্পর্ককে বিশেষ গুরুত্ব দেয়।

সৌদি আরবও বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ককে বিশেষ গুরুত্ব দেয় বলে উল্লেখ করেন রাষ্ট্রদূত।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসানউপস্থিত ছিলেন।

বিপুল পরিমাণ ভারতীয় ওষুধসহ চিকিৎসক আটক

চট্টগ্রাম অফিস: ভারত থেকে অবৈধ পথে আমদানি নিষিদ্ধ ওষুধসহ এক চিকিৎসককে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে ওই চিকিৎসককে আটক করা হয় বলে জানিয়েছে খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রনব চৌধুরী।

আটক চিকিৎসকের নাম মো. বাবলু হোসেন (৩০)। তিনি সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ থানাধীন উত্তর রাজনগর এলাকার খোরশেদ আলমের পুত্র। তিনি নগরীর খুলশী থানাধীন জাকির হোসেন রোডের এক বাড়িতে ভাড়া থাকেন।

ওসি জানান, সিলেটের রাগিব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ থেকে ২০১৫ সালে এমবিবিএস পাস করেন ডা. মো. বাবলু হোসেন। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে রিক্সা ভ্যানযোগে ৫ বস্তা ভারতীয় প্যারাসিটামল জাতীয় ওষুধ নিয়ে যাচ্ছিলেন ডা. বাবলু। টহল পুলিশের তল্লাশিকালে তিনি এসব ওষুধ আমদানির বৈধ কোনও কাগজপত্র দেখাতে পারেন নি।

জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানিয়েছেন, তিনি সিলেটের তামাবিল সীমান্ত দিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ ভারতীয় ওষুধ এনে নগরীর হাজারী গলির বিভিন্ন দোকানে সরবরাহ করে থাকেন। জব্দকৃত ২ লক্ষ ৪০ হাজারটি ওষুধের দাম প্রায় ১০ লক্ষ টাকা হবে।

এ ঘটনায় খুলশী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

সর্বনিম্ন ফিতরা ৭০ টাকা

চট্টলা ডেস্ক:

ফিতরারমজানে এ বছর বাংলাদেশে ফিতরার হার জনপ্রতি সর্বনিম্ন ৭০ টাকা ও সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯৮০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় ফিতরা নির্ধারণ কমিটির সভায় এর হার নির্ধারণ করা হয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী পরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন এ তথ্য জানান।

সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয় যে, ইসলামী শরিয়াহ মতে সামর্থ্য অনুযায়ী আটা, খেজুর, কিসমিস, পনির ও যবের যে কোনো একটি পণ্যের নির্দিষ্ট পরিমাণ বা এর বাজার মূল্য ফিতরা হিসেবে গরিবদের মধ্যে বিতরণ করা যায়।

আটার ক্ষেত্রে এর পরিমাণ ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম (অর্ধ সা’)। খেজুর, কিসমিস, পনির ও যবের ক্ষেত্রে ৩ কেজি ৩০০ গ্রামের (এক সা’) মাধ্যমে সাদকাতুল ফিতর (ফিতরা) আদায় করতে হয়।এসব পণ্যের বাজার মূল্য হিসাব করে সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন ফিতরা নির্ধারণ করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় ফিতরা কমিটির সভাপতি ও বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। ফিতরা নির্ধারণ কমিটির সদস্য ও বিশিষ্ট আলেমরা উপস্থিত ছিলেন।

সীতাকুন্ডে শিপ ইয়ার্ডে আগুন: নিহত ১, আহত ৫

চট্টগ্রাম ব্যুরো:

চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড উপজেলার বার আউলিয়া এলাকার প্রিমিয়ার ট্রেড করপোরেশন নামে একটি শিপ ইয়ার্ডে জাহাজ কাটার সময় আগুনে দগ্ধ হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন পাঁচজন।

বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিক তাদের নাম জানা যায়নি। আহতদের একজনের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গেছে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে জানিয়ে ফায়ার সার্ভিস কুমিরা স্টেশনের কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল হারুণ পাশা বলেন, জাহাজটি কাটার সময় সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ইঞ্জিনের পাশের রুমে আগুন ধরে যায়।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, আহত অবস্থায় ছয়জনকে হাসপাতালে নেওয়া হলে একজনকে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। আহত বাকি পাঁচজনের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর।

মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

চট্টগ্রাম অফিস: বাঁশখালীতে ১২ বছর বয়সী এক মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. ফয়জুল্লাহ নামে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার ভোরে বাঁশখালীর মনকির চর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার শিক্ষক ফয়জুল্লাহ বাঁশখালীর শীলকূপ ইউনিয়নের মাওলানা আবুল কাশেমের ছেলে।

র‌্যাব-৭ এর মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মো. মাশকুর রহমান জানান, গত ২৪ এপ্রিল ওই মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ করে শিক্ষক মো. ফয়জুল্লাহ। পরে এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হলেও পলাতক ছিলেন তিনি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব সদস্যরা তাকে আটক করে। তাকে বাঁশখালী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

কল্যানপুর গার্লস কলেজে সুচিন্তা’র জঙ্গিবাদ বিরোধী সেমিনারে চিত্রনায়ক রিয়াজ

‘তারুণ্য যেনো জঙ্গিবাদের অন্ধকারে হারিয়ে না যায়’


নিজস্ব প্রতিবেদক:

‘জাগো তারুণ্য রুখো জঙ্গিবাদ’ শিরোনামে সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের নিয়মিত জঙ্গিবাদ বিরোধী কার্যক্রমের এবারের সেমিনারটি আয়োজন করা হয়েছিল কল্যানপুর গার্লস কলেজে।

এবারের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত অভিনয় শিল্পী রিয়াজ আহমেদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে শিক্ষার্থীদের মাঝে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন এবং এই কার্যক্রমের উদ্দেশ্য ও গুরুত্ব তুলে ধরে আজ সারাবেলা সম্পাদক জব্বার হোসেন বলেন, ধর্ম প্রত্যেকের ব্যক্তিগত বিশ্বাস এবং অধিকার। সেই বিশ্বাস ও অনুভূতির জায়গাটি তে তারা আঘাত করছে ক্ষমতা ও বাণিজ্যিক স্বার্থের লোভে। যার সঙ্গে ধর্মেও আদৌ কোনো সম্পর্ক নেই। জঙ্গিবাদের ফলে ইসলামকে ক্ষতিগ্রস্থ করা হচ্ছে। তারা যে ইসলামের কত বড় শত্রুতা আমাদের বোঝা দরকার। ইসলামে বলা হয়েছে, সেই প্রকৃত মুসলমান যার কাছে অন্য ধর্মের মানুষের জান, মাল নিরাপদ থাকে।

পবিত্র মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়ে চিত্রনায়ক রিয়াজ আহমেদ বলেন, জীবনের শিশু, কিশোর, তরুণ ও বৃদ্ধ এই ধাপগুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হচ্ছে তারুণ্য। তারুণ্যের আলোয় আলোকিত হয় সমাজ ও রাষ্ট্র। কিন্তু কিছু বিপদ গামী, স্বার্থান্বেষী মানুষের প্ররোচনায় এই তারুণ্য হারিয়ে যাচ্ছে জঙ্গিবাদের অন্ধকারে। তাই সঠিক পথে থাকতে হবে।

কলেজে তোলা ছবি

তিনি আরো বলেন, ২০০২ সালে ময়মনসিংহে এক সাথে ৪টি হলে বোমা হামলা হয়েছিল, ২টি হলে আমার সিনেমা চলছিল। ২৭ জন মারা যায় ঐ ঘটনায়। আহতদের দেখতে গিয়েছিলাম ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। আমি কোনদিন ভুলবনা, সবুর নামে একজন ব্যক্তি বোমা বিষ্ফোরণে যিনি দুই পা হারিয়েছেন তার পাশে দাড়ানোর পর সে বলল, ‘দুই পা হারায় ছিতো কি হইয়ে আপনি আমাকে একটা অটোগ্রাফ দেন’ এ কথা শোনার পর আমি আর নিজেকে ধরে রাখতে পারিনি। সেখানে দাড়িয়ে অঝরে কেঁেদছিলাম। আমরা বাঙালিরা অনেক সহজ-সরল। আমাদের এই সরলতার সুযোগ নিয়ে ধর্মের মিথ্যা ভয় ও বেহেশত এর প্রলোভন দেখিয়ে তরুণদের জঙ্গিবাদের দিকে নিতে যাচ্ছে একটি মহল।

এরপর ২০০৪ সালের ২১ আগষ্ট গ্রেনেডহামলা, ১৭ আগষ্ট ২০০৫ এ ৬৩টি জেলায় একযোগে বোমাহামলা, ১৮ জুলাই ২০১৬ তে হলি আর্টিজান হামলা। এই হামলাগুলো কারা করছে? তরুণদেরই ব্যবহার করা হচ্ছে এই সব হামলায়। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর বাণী বিকৃত করে পবিত্র কোরআনের ভুল তর্জমা করে জঙ্গিবাদের দিকে ঠেলে দিয়ে এই সব নৃশংস হামলা করা হচ্ছে। পবিত্র কোরআনের সূরা আলমায়িদায় বলা হয়েছে, ‘একজন নিরীহ মানুষকে হত্যাকরা আর সমস্ত মানবজাতি হত্যা করা এক’। তাই ভুল পথ থেকে সরে আসতে হবে তরুণদের। পাশাপাশি সমাজের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আলেম সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে কোরআন হাসিদের সঠিক ব্যাখ্যা ও তর্জমা নিয়ে। তাহলেই এই সমস্যার সমাধান হবে। ইতিমধ্যেই সরকার প্রধানের জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতির কারনে বাংলাদেশ জঙ্গিমুক্ত হয়েছে। তবে শকুনের দল বসে নেই তাই আমাদের ও সচেতন থাকতে হবে।

অনুষ্ঠানে কল্যানপুর গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল শাহনাজ বেগম বলেন, বাংলাদেশ ইসলামিক দেশ। আমরা কি চাইবো জঙ্গিবাদের দেশ হিসেবে বাংলাদেশ পরিচিত হোক? অবশ্যইনা। আমরা চাই অসাম্প্রদায়িক একটি দেশ। ধর্ম নিরোপক্ষ শান্তিপূর্ণ একটি দেশ চাই আমরা।

কল্যানপুর ৫ নম্বর রোডের একটি বাড়িতে জঙ্গি আস্তানায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর অপারেশনের কথা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ইসলাম মানুষ হত্যা সমর্থন করেনা। তবুও কেন তরুণরা জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পরছে? কারণ তাদেও ভুল বোঝানো হচ্ছে। ব্রেনওয়াশ করা হচ্ছে। লক্ষ্য করলে দেখাযায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হওয়া, বিভিন্ন অপারেশনে নিহত হওয়া সব জঙ্গিরাই তরুণ। তাই বুঝতে হবে তরুণদের কেই টার্গেট করে জঙ্গি বানানো হয়। তাই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে সমৃদ্ধির পথে।

সুচিন্তা’র গবেষণা সেলের পক্ষ থেকে আশরাফুল আলম শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন উত্তরের মাধ্যমে ইসলাম ধর্মে জঙ্গিবাদ সমর্থন-অসমর্থন বিষয়ে মত বিনিময় করেন।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন আজ সারাবেলা’র সম্পাদক জববার হোসেন।

চমকে ভরা ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হলেন এইচ.এম তাজ

নিজস্ব প্রতিনিধি:

নানা নাটকীয়তার পর অবশেষে নতুন নেতৃত্ব পেয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সম্মেলনের কয়েকমাস পর প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এবার সংগঠনটির শীর্ষ নেতৃত্ব নির্বাচন করেছেন। ফলে এ পূর্নাঙ্গ কমিটিতে দেখা গেছে নানা চমক।

সোমবার (১৩ মে) বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক উপ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এইচ এম তাজ উদ্দিন’কে পুনরায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে মনোনীত করা হয়।

এই কমিটিতে মোট ৩০১জন সদস্য’কে সংযুক্ত করেছেন। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানির স্বাক্ষরিত কমিটির তালিকা গণমাধ্যমের পাঠানো হয়।

নবনির্বাচিত ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক তাজ এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হলের ছাত্রলীগের সদস্য, এরপর একই হলে সহ-সভাপতি নির্বাচিত ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন।

বিগত কমিটিতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক উপ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া মেধাবী এই তরুণের বাড়ি কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলায়। পাশাপাশি তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভিত্তিক কক্সবাজার স্টুডেন্টস ফোরামের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন।

এছাড়াও গত একাদশ সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজারের চার আসনে ছাত্রলীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটিতে কক্সবাজার-১ আসনে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক হিসেবে সফল দায়িত্ব পালন করেন। তার বাবা আলহাজ্ব আব্দুল মোনাফ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ চকরিয়া পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের সহ-সভাপতি। ছোট ভাই ফাহিম ওয়াহিদ রাফি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চকরিয়া পৌর ১নং ওয়ার্ড শাখা।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা কতৃক অনুমোদিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ঠাঁই পাওয়া তাজ উদ্দিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং সর্বস্তরের শুভাকাংক্ষীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১১-১২ মে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত হয় ছাত্রলীগের ২৯তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন। সে সময় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন কমিটি ঘোষণা করার কথা থাকলেও রাজনৈতিক অস্থিরতা ও বিভিন্ন ইস্যুর কারণে প্রায় আড়াই মাস পর (৩১ জুলাই) রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে সভাপতি ও গোলাম রাব্বানীকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। পাশাপাশি সে সময় দ্রুত পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার তাগিদ দেন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২২মে থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

২২মে থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

নিউজ ডেস্ক: পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আগামী ২২ মে থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। আর ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ২৯ মে।

সোমবার দুপুরে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন।

সচিব জানান, আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বিভিন্ন রুটে ১২টি বিশেষ ট্রেন যাতায়াত করবে। এ ছাড়া তিনি বলেন, ঢাকা ছাড়ার অগ্রিম টিকিট বিক্রি চলবে ২৯ মে পর্যন্ত। আর ফিরতি টিকিট বিক্রি হবে ২ জুন পর্যন্ত।

রেল সূত্র জানায়, আগামী ২২ মে ৩১ মের, ২৩ মে ১ জুনের, ২৪ মে ২ জুনের, ২৫ মে ৩ জুনের এবং ২৬ মে ৪ জুনের আগাম টিকিট বিক্রি করা হবে। এ ছাড়া আগামী ২৯ মে ৭ জুনের, ৩০ মে ৮ জুনের, ৩১ মে ৯ জুনের, ১ জুন ১০ জুনের ও ২ জুন ১১ জুনের ফিরতি টিকিট বিক্রি হবে।

এদিকে জানা গেছে, যাত্রীদের দুর্ভোগ কমাতে কমলাপুর ছাড়াও পাঁচ স্থান থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে। এবার ৫০ শতাংশ টিকিট অনলাইনে বিক্রি হবে। টিকিট কালোবাজারিরোধে জাতীয় পরিচয়পত্র দেখানোর পরই টিকিট দেওয়া হবে।

শিডিউল ঠিক রাখতে ঈদের তিন দিন আগে থেকে কনটেইনার ও জ্বালানি তেলবাহী ট্রেন ছাড়া অন্য মালবাহী ট্রেন চলবে না। ঈদের দিন বিশেষ ব্যবস্থায় কয়েকটি মেইল ট্রেন চালানো হবে, তবে কোনো আন্তঃনগর নয়।

রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, ঈদে মানুষের যাত্রা নিরাপদ করতে সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। রেলপথ মন্ত্রীর নেতৃত্বে সবাই মিলে কাজ করছি। এবার টিকিট কিনতেও ভোগান্তি পোহাতে হবে না। এবারই প্রথম ট্রেনের টিকিট স্টেশনের বাইরে বিক্রি করার ব্যবস্থা করা হয়েছে।