১৮ অক্টোবর২০১৭, ৩ কার্তিক১৪২৪
1024x90-ad-apnar

২০ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা আনলো ওয়ালটন

Sunday, 08/10/2017 @ 5:13 pm

২০ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা আনলো ওয়ালটন

নিউজ ডেস্ক: বাজারে এলো ওয়ালটনের ‘সেলফি কিং’। প্রথম দেশীয় ব্র্যান্ড হিসেবে ‘জেডএক্স-থ্রি’ মডেলের ২০ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরার এই স্মার্টফোন আনলো ওয়ালটন।

এফ ২.০ অ্যাপারচার সাইজের এই ক্যামেরায় ব্যবহৃত হয়েছে ৪ সেলের লাইট সেন্সর প্রযুক্তি। ফলে যে কোনো পরিবেশ ও আলোতে তোলা যাবে নিখুঁত সেলফি। এর পি.ডি.এ.এফ প্রযুক্তি ০.১ সেকেন্ডেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্যামেরার ফোকাস সেট করবে। রয়েছে ‘বোকেহ সেলফি মোড’। যার মাধ্যমে সাবজেক্টকে ফোকাস করে আশেপাশের সবকিছুকে ব্লার করে সেলফি তোলা যাবে।

এই ফোনের পেছনে রয়েছে ডুয়াল ক্যামেরা। যার একটিতে আছে ১৩ মেগাপিক্সেল, অন্যটিতে ৫ মেগাপিক্সেল লেন্স। মেইন ক্যামেরা ধারণ করবে ছবির ডিটেইলস। আর সেকেন্ডারি ক্যামেরা ধারণ করবে ছবির ডেপথ-অব-ফিল্ড। যাকে বলা হয় ‘পোর্টেইট মোড’। ফলে ছবিতে ডিএসএলআর-এর মতো প্রফেশনাল ব্যাকগ্রাউন্ড ইফেক্ট পাওয়া যাবে। ক্যামেরায় নরমাল মোড ছাড়াও ফেস বিউটি, এইচডিআর, টাইম ল্যাপস, স্লো মোশন, প্যানোরামা, স্মার্ট সিন, নাইট মোড এবং জিফের মতো আকর্ষণীয় মোডে ছবি তোলার সুযোগ থাকছে। ফ্রন্ট কিংবা রিয়ার উভয় ক্যামেরায় ফুল এইচডি ভিডিও ধারণ করা যাবে।

ওয়ালটনের সেল্যুলার ফোন বিপণন বিভাগের প্রধান আসিফুর রহমান খান জানান, ‘জেডএক্স-থ্রি’ বাজারে আসার আগেই স্মার্টফোনপ্রেমীদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। অসংখ্য ক্রেতা ফোনটির প্রি-অর্ডার দিয়েছেন। যারা আগাম ফরমাশ দিয়েছেন তারা পাচ্ছেন ২ হাজার টাকা ক্যাশব্যাকসহ আকর্ষণীয় উপহার।

ওয়ালটনের সেল্যুলার ফোন গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর আরিফুল হক রায়হান জানান, নতুন এই ফ্ল্যাগশিপ ফোনের সামনে রয়েছে ২০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। যে কারণে এর নাম হয়েছে ‘সেলফি কিং’।

জেডএক্স-থ্রি’র অন্যতম ফিচার এর শক্তিশালী ব্যাটারি। ৪ হাজার ৫৫০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি দীর্ঘক্ষণ পাওয়ার ব্যাকআপ দেবে। ১৮ ওয়াট আল্ট্রা ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি থাকায় খুব কম সময়ে পূর্ণ চার্জ হবে।

‘জেডএক্স-থ্রি’ স্মার্টফোনে রয়েছে ৬ ইঞ্চির আইপিএস প্রযুক্তির ফুল এইচডি ডিসপ্লে। ফলে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারে এবং ভিডিও দেখা, গেম খেলা, বই পড়া বা ইন্টারনেট ব্রাউজিং হবে আরো প্রাণবন্ত। এর ২.৫ডি কার্ভড গ্লাস ডিসপ্লে প্যানেল স্ক্রিন টাচ স্বাচ্ছন্দ্য দেবে। আঁচর ও দাগ থেকে ডিসপ্লের সুরক্ষায় রয়েছে হাই প্রোটেকটিভ স্ক্র্যাচ প্রুভ গ্লাস।

ফ্ল্যাগশিপ ফোনটির উচ্চগতি নিশ্চিত করতে রয়েছে ৬৪-বিট সম্পন্ন ২.৫ গিগাহার্জ গতির কর্টেক্স-এ৫৩ অক্টাকোর প্রসেসর। উন্নতমানের গেমিং ও স্পষ্ট ভিডিওর অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে মালি-টি ৮৮০। রয়েছে থ্রিডি সারাউন্ড সাউন্ড প্রযুক্তি। যাতে মিউজিক হবে আরো সুরেলা ও জীবন্ত।

স্বাচ্ছন্দ্যে বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, থ্রিডি গেমিং এবং দ্রুত ভিডিও লোড ও ল্যাগ-ফ্রি ভিডিও স্ট্রিমিং সুবিধা দিতে রয়েছে ৪ জিবি দ্রুতগতির এলপিডিডিআর৪এক্স র‌্যাম। আছে ৬৪ গিগাবাইট অভ্যন্তরীণ মেমোরি। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ফলে অনেক বেশি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টস ইত্যাদি সংরক্ষণ করা যাবে।

মেটাল ডিজাইনের সুদৃশ্য ফোনটি মিলছে ধূসর ও মকা রঙে। ফোরজি সিম ব্যবহারের জন্য একটি একটি আদর্শ হ্যান্ডসেট। দুটি সিম ব্যবহারের সুবিধাসম্পন্ন ফোনটি থ্রিজি, ফোরজি এবং সিডিএমএ নেটওয়ার্ক সমর্থন করে। এটি অ্যান্ড্রয়েড নূগাট ৭.০ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত। ফোনের তথ্য সুরক্ষায় রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। আঙ্গুলের ছোঁয়ায় মাত্র ০.২ সেকেন্ডেই ফোনটি আনলক করা যাবে। অনলাইন কেনাকাটা বা অ্যাপ এক্সেসেও ফিঙ্গারপ্রিন্ট কাজ করবে। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর হিসেবে পাঁচ আঙ্গুলের ব্যবহার করা যাবে।

৩ অক্টোবর থেকে দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ড আউটলেটে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি। যার দাম ধরা হয়েছে ৩৩ হাজার ৯৯০ টাকা।

উল্লেখ্য, দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ড আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যাচ্ছে এই ‘সেলফি কিং’সহ ওয়ালটনের যেকোনো মডেলের স্মার্টফোন। রয়েছে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধাও।