স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বেকিং সোডার ব্যবহার

স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বেকিং সোডার ব্যবহার

নিউজ ডেস্ক: ক্যান্সারের কারণে প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়। ক্যান্সারের চিকিৎসার বিপুল খরচের কারণে অনেকেই যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করে উঠতে পারেন না। ব্যয়বহুল ওষুধ এবং ক্যান্সারের সামগ্রিক খরচ অনেকেরই নাগালের বাইরে। যে কারণে ক্যান্সার এখনও পর্যন্ত মধ্যবিত্ত মানুষের কাছে একটি আতঙ্ক। তবে সম্প্রতি আশার বাণী শুনিয়েছেন ইতালির এক চিকিৎসক-গবেষক তুলিও সিমোনসিনি।

তার দাবি, মাত্র ৫-১০ টাকা মূল্যের নিত্যপ্রয়োজনীয় ঘরোয়া উপাদানের সাহায্যেই ক্যান্সার নিরাময় করা সম্ভব। সিমোনসিনির মতে, ক্যান্সার এক ধরনের ফুসকুড়ি যা বেকিং সোডার সাহায্যে সহজেই দূর করা যায়। তার লেখা ‘ক্যান্সার ইজ অ্যা ফাঙ্গাস: অ্যা রিভল্যুশন ইন টিউমার থেরাপি’ (Cancer is a Fungus: A Revolution in Tumor Therapy) বইয়েও এ কথা উল্লেখ করেছেন তিনি। তবে ক্যান্সার ছাড়াও স্বাস্থ্যগত কারণে বেকিং সোডার একাধিক ব্যবহার সত্যিই চমকপ্রদ। চলুন জেনে নেওয়া যাক স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে বেকিং সোডার কয়েকটি আশ্চর্য ব্যবহার।

-সকালে ঝরঝরে অনুভব করতে দিনে দু’বার বেকিং সোডা জলতে মিশিয়ে পান করলে, বিশেষ করে সকালে এবং রাতে ঘুমাতে যাবার আগে তা পরেরদিন সকালের জন্য অনেক স্বস্তিদায়ক হয়।

-বেকিং সোডা ও ম্যাগনেসিয়াম ক্লোরাইড একসঙ্গে মিশিয়ে বমি বমি ভাবের চিকিৎসায়, যে কোনও ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যায় যেমন হৃদরোগ, স্নায়ুবিক সমস্যা, ক্যান্সার ও ফ্লু-এর চিকিৎসায় ব্যবহার করা যায়। এই দুইটি উপাদান একসঙ্গে মিশে দেহের কোষ, কলা এবং অঙ্গ থেকে বিষাক্ত পদার্থ ও অ্যাসিড বের করে দিয়ে এদের সংযোগকে শক্তিশালী করে।

-দেহের পেশীতে টান পরা, ক্লান্তি ও ত্বকের মরা কোষ থেকে রক্ষা পেতে স্নানের সময় জলেতে ১ কাপ বেকিং সোডা মিশিয়ে স্নান করলে ত্বক হবে নরম, মসৃণ ও উজ্জ্বল।

-ভাইরাসের কারণে ত্বকের প্রদাহের চিকিৎসায়, ত্বকের প্রদাহ থেকে রক্ষা পেতে সামান্য বেকিং সোডা নিয়ে সরাসরি আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে মৃদু মালিশ করতে হবে। যতদিন ভাল না হয়, ঠিক এ ভাবে ততদিন লাগাতে হবে।