১৯ অক্টোবর২০১৭, ৪ কার্তিক১৪২৪
1024x90-ad-apnar

যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীর সংখ্যা কমিয়ে আনার প্রক্রিয়ার শুরু,ডিভি লটারি বন্ধে সিনেটে বিল

Thursday, 09/02/2017 @ 3:14 pm

ডিভি লটারি বন্ধে সিনেটে বিল

ডিভি লটারি বন্ধে সিনেটে বিল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সাত মুসলিমপ্রধান দেশের বিরুদ্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভ্রমন নিষেধাজ্ঞা জারি যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীর সংখ্যা কমিয়ে আনার প্রক্রিয়ার শুরুমাত্র। ডিভি লটারির মাধ্যমে ৫০ হাজার লোক প্রতিবছর বিভিন্ন দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসনের সুযোগ পায়। পরে তারা গ্রিন কার্ড নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী নাগরিকদের মতো সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করেন। এ ছাড়া ডিভি লটারিতে আসা লোকেরা পরে পারিবারিক কোটায় তাদের অন্য আত্মীয়-স্বজনকেও যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যান। যুক্তরাষ্ট্রে আগত অভিবাসীর সংখ্যা কমাতে ডাইভারসিটি ভিসা লটারি (ডিভি লটারি) বন্ধ ও পারিবারিক কোটায় অভিবাসীর সংখ্যা সীমিত করার প্রস্তাব রেখে মার্কিন সিনেটে বিল উত্থাপন করা হয়েছে। সিনেটে উত্থাপিত বিলটি পাস হলে প্রতিবছর যুক্তরাষ্ট্রে আগত অভিবাসীর সংখ্যা অর্ধেকে নেমে আসবে।

মঙ্গলবার অভিবাসীর সংখ্যা কমিয়ে আনার প্রস্তাবসম্পর্কিত বিলটি সিনেটে উত্থাপন করা হয়েছে। তবে ভোটাভুটি এখনো হয়নি।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি শন স্পাইসারের এ ঘোষণার পরদিনই ডিভি লটারি বন্ধ ও পারিবারিক কোটায় অভিবাসন সীমিত করার প্রস্তাব নিয়ে বিল আনা হলো।

বিলে বলা হয়েছে, অভিবাসনের সুযোগ পাওয়া স্বামী-স্ত্রী, তাদের সন্তান ও অসুস্থ বাবা-মাকে পারিবারিক কোটায় যুক্তরাষ্ট্রে নিতে পারবেন। ভাই-বোন, অন্য আত্মীয়-স্বজনদের অভিবাসী হওয়ার সুযোগ দিতে পারবেন না তারা। এ ধরনের অভিবাসীরা যুক্তরাষ্ট্রের কর্মজীবী জনগণের জন্য হুমকি সৃষ্টি করছে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে ইরাক, ইরান, সিরিয়া, ইয়েমেন, সুদান, লিবিয়া ও সোমালিয়ার নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন। আদালত নিষেধাজ্ঞার অংশবিশেষ রোধ করেছেন। ট্রাম্প প্রশাসন নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালে আপিল করেছে, যা আদালতে ঝুলছে। এ অবস্থায় সোমবার হোয়াইট হাউস জানায়, এ তালিকায় আপাতত আর কোনো দেশের নাম যুক্ত করার পরিকল্পনা নেই।