১০ ডিসেম্বর২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ১৪২৫
1024x90-ad-apnar

নগরীর উন্নয়ন মহিউদ্দিন চৌধুরীর পরামর্শে পরিচালিত হবে: আ.জ.ম নাছির

Wednesday, 29/04/2015 @ 1:40 pm

haziচট্টগ্রাম অফিস: অগ্রজ রাজনীতিক ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর পরামর্শে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের উন্নয়ন করার ঘোষণা দিয়েছেন নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। বুধবার বিকেলে মহিউদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতকালে তিনি এ ঘোষণা দেন।
বুধবার সাড়ে চারটায় মহিউদ্দিন চৌধুরীর চশমা হিলের বাসভবনে যান আ জ ম নাছির। প্রথমে মহিউদ্দিন চৌধুরীর পা ছুঁয়ে সালাম করেন এবং ফুল দিয়ে তাকে শুভেচ্ছা জানান। মহিউদ্দিন চৌধুরী হাসি মুখে নাছিরকে অভিনন্দন জানিয়ে নগর উন্নয়নে বিভিন্ন পরামর্শ দেন।
এসময় মহিউদ্দিন চৌধুরীকে উদ্দেশ্য করে আ জ ম নাছির বলেন, ‘আপনি আমার অভিভাবক। আপনি ১৭ বছর সিটি কর্পোরেশন পরিচালনা করেছেন। সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে নগরীর উন্নয়নের কারণে পুরষ্কৃতও হয়েছিলেন। আপনার অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে। আমি আপনার ছোট ভাই। চট্টগ্রামের কাঙ্খিত উন্নয়নে আপনার পরামর্শ প্রয়োজন। আপনার পরামর্শে চট্টগ্রামকে স্বপ্নের মেগাসিটিতে পরিণত করতে চাই। ’
আ জ ম নাছির সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি নগরপিতা নয়, চট্টগ্রামের সেবক হয়ে কাজ করতে চাই। সেক্ষেত্রে মহিউদ্দিন ভাইয়ের পরামর্শ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের মধ্যে আগে কোন বিভেদ ছিল না এখনো নেই,ইনশাল্লাহ ভবিষ্যতেও থাকবে না। বড় ভাইয়ের পরামর্শ ও সহযোগিতায় চট্টগ্রামের চেহারা পাল্টে দিব। সেই সঙ্গে নগরীতে আওয়ামী লীগের অবস্থানকে আরো শক্তিশালী করব।’
এর আগে প্রায় ৪০ মিনিট আলাপকালে মহিউদ্দিন চৌধুরী ও আ জ ম নাছিরকে খুব হাস্যেজ্জল দেখা গেছে। আজম নাছির বারবার মহিউদ্দিন চৌধুরীর কাছে কখন কি করবেন, কিভাবে করবেন বা কিভাবে করলে ভাল হয় সে বিষয়গুলো জিজ্ঞেস করেন। মহিউদ্দিন চৌধুরী সাবলিলভাবে বিভিন্ন বিষয় বুঝিয়ে দেন নাছিরকে।
মহিউদ্দিন চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ‘চট্টগ্রামের মানুষ অনেক আশা ভরসা করে নাছিরকে ভোট দিয়েছে। সে একজন যোগ্য সংগঠক। নেতৃত্বদানের গুণাবলী তার আছে। চট্টগ্রামের উন্নয়ন নিয়ে আমরা আশান্বিত। বন্দরনগরীর ভূ প্রাকৃতিক অবস্থানকে কাজে লাগিয়ে নাছির চট্টগ্রামকে আধুনিক শহর হিসেবে গড়ে তুলবেন। এজন্য সকলকে সহযোগিতা করতে হবে।’
আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীকে ভোট দিয়ে মেয়র পদে জয়যুক্ত করায় মহিউদ্দিন চৌধুরী নগরবাসীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
শিক্ষার উন্নয়নের ব্যাপারে আ জ ম নাছিরকে মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের দেশে শিক্ষা ব্যবস্থা এখনো উন্নত হয়নি। দেশের গরীব ও দরিদ্র পরিবারের সন্তানরা লেখাপড়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। চট্টগ্রামে যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে তা পর্যাপ্ত না। আমি ১৭ বছরে যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছি সেসবই এখন সম্বল। মেয়র মনজুর সাহেব কোন নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেননি। উল্টো ওই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে দিয়েছেন। সঠিক পরিকল্পনা গ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষা ক্ষেত্রে বিপ্লব ঘটাতে হবে। এছাড়া নগরীর অন্য সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে সমাধানের আহ্বান জানান তিনি।’
পরে মহিউদ্দিন চৌধুরী ও আজম নাছির একে অপরের মুখে মিষ্টি তুলে দেন। মহিউদ্দিন চৌধুরী নাছিরের মুখে মিষ্টি তুলে দিয়ে বলেন মিষ্টির মত মধুর হোক নগরপিতার উন্নয়ন। বাসভবন থেকে বের হয়ে আসার সময় আ জ ম নাছির আবারও মহিউদ্দিন চৌধুরীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন।
এসময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আলাউদ্দিন নাসিম,মহেশখালীর সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, নগর আওয়ামী লীগের সদস্য ব্যারিস্টার মহিবুল চৌধুরী নওফেল উপস্থিত ছিলেন।