২৬ মার্চ২০১৯, ১২ চৈত্র১৪২৫
1024x90-ad-apnar

ছুটির দিনেও ব্যস্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

Saturday, 05/01/2019 @ 4:43 pm

ছুটির দিনেও ব্যস্ত মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

নিউজ ডেস্ক: নতুন মন্ত্রিসভার সদস্যদের শপথ গ্রহণের প্রস্তুতি হিসেবে শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনও কর্মব্যস্ত সময় পার করছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

দফতরে যোগ দিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখার কর্মকর্তারাও দাফতরিক কাজে ব্যস্ত রয়েছেন। তারা নতুন মন্ত্রীদের শপথ গ্রহণের ফাইল তৈরির কাজসহ আনুষাঙ্গিক কাজগুলো সম্পন্ন করে রাখছেন।

এখন কতজন মন্ত্রীর ফাইল তৈরির কাজ চলছে সেই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে এখনও কিছুই জানানো হয়নি। তবে সোমবার ৪০-৪৫ জনের মন্ত্রী শপথ নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের বছর খানেক পর মন্ত্রিপরিষদের আকার বাড়িয়ে ৫৫-৬০ করা হতে পারে বলে জানিয়েছে একটি সূত্র।

এ প্রসঙ্গে মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম বলেন, সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নেবে বলে আশা করছি। এই অনুষ্ঠানটি পরিচালনার দায়িত্ব মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের। তাই এ সংশ্লিষ্ট কাজগুলো গুছিয়ে রাখার জন্যই আজ সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও কাজ করছি।

সরকার তথা মন্ত্রিসভা গঠনের জন্য রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, রাষ্ট্রপতি সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী একাদশ সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যদের আস্থাভাজন সংসদ-সদস্য শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী পদে নিয়োগের সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। তার নেতৃত্বে নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের জন্য সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন। নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের সঙ্গে সঙ্গে বর্তমান মন্ত্রিসভা ভেঙে দেওয়া হয়েছে বলে গণ্য করা হবে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, মন্ত্রিসভায় একজন প্রধানমন্ত্রী থাকবেন এবং প্রধানমন্ত্রী যেভাবে নির্ধারণ করবেন সেভাবে মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রী থাকবেন। প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের রাষ্ট্রপতি নিয়োগ দেন।

তবে মন্ত্রিসভার সদস্যদের সংখ্যার কমপক্ষে ১০ ভাগের নয় ভাগ সংসদ সদস্যদের মধ্য থেকে নিয়োগ পাবেন। সর্বোচ্চ ১০ ভাগের এক ভাগ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার যোগ্য ব্যক্তিদের মধ্য থেকে মন্ত্রিসভার সদস্য মনোনীত (টেকনোক্র্যাট) হতে পারবেন।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ জানায়, রাষ্ট্রপতি বঙ্গভবনে প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর শপথ পড়াবেন। এরপর মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের শপথ পড়াবেন। শপথের পর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে দফতর বণ্টন করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নিলে তারাই হবেন দেশের নতুন সরকার। শপথ নেওয়া পর্যন্ত আগের মন্ত্রিসভা বহাল থাকবে। নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের সঙ্গে সঙ্গে বর্তমান মন্ত্রিসভা ভেঙে যাবে।