২০ মার্চ২০১৯, ৬ চৈত্র১৪২৫
1024x90-ad-apnar

চট্টগ্রামের বিচারককে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট

Wednesday, 12/08/2015 @ 10:38 am

চট্টগ্রামের বিচারককে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট

চট্টগ্রামের বিচারককে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট

চটগ্রাম অফিস:
চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা আদালতের এক বিচারককে উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশ থাকার পরও চেক প্রতারণার এক মামলায় রায় দেওয়ায় সতর্ক করেছেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে ওই বিচারকের দেওয়া রায়ও বাতিল করেছেন আদালত।

এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার (১২ আগস্ট) বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী ও বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

৩০ লাখ টাকার চেক প্রতারণার অভিযোগে ঢাকার মতিঝিলের আলম এন্টারপ্রাইজের মালিক শাহ আলম চৌধুরীর বিরুদ্ধে ২০০৯ সালে চট্টগ্রাম আদালতে মামলা করেন মঈন উদ্দিন নামে এক ব্যবসায়ী।

পরে শাহ আলম হাইকোর্টে মামলা বাতিল চেয়ে আবেদন করলে ২০১০ সালের ২৯ অক্টোবর হাইকোর্ট মামলার কার্যক্রমের ওপর স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেন।

এ স্থগিতাদেশ থাকা অবস্থায় চলতি বছরের ২৫ জুন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালত-৩’র বিচারক শাহ আলমকে ৩০ লাখ টাকা জরিমানা ও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন। একইসঙ্গে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি করেন।

পরে শাহ আলমের পক্ষ থেকে বিষয়টি উল্লেখ করে হাইকোর্টে একটি সম্পূরক আবেদন করা হয়। মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) আবেদনটির ওপর শুনানি হয়।

বুধবার এ আবেদনের ওপর আদেশ দেওয়া হয়।

আদালতে শাহ আলমের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু ও অ্যাডভোকেট আবেদ রাজা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. বশির উল্লাহ।

পরে আবেদ রাজা সাংবাদিকদের বলেন, উচ্চ আদালতে মামলার ওপর স্থগিতাদেশ থাকার পরও বিচারিক আদালত রায় দেন। এ কারণে হাইকোর্ট ওই বিচারককে সতর্ক করে ২৫ জুনের দেওয়া রায় বাতিল করেন।

ড. বশির উল্লাহ সাংবাদিকদের বলেন, ভবিষ্যতে ওই বিচারককে এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলেছেন হাইকোর্ট।