১৫ নভেম্বর২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ১৪২৫
1024x90-ad-apnar

কথাসাহিত্যিক মুহম্মদ জাফর ইকবালের সাথে কথোপকথন

Saturday, 11/04/2015 @ 1:22 pm

jaferরোজী চৌধুরী, চট্টগ্রাম অফিস: চট্টগ্রামের থিয়েটার ইন্সটিটিউটে শনিবার সকালে বসেছিল কিশোর তরুণদের সাথে প্রিয় লেখকের মিলনমেলা। শব্দকল্পদ্রুমের আয়োজনে এবং মিডিয়াগ্রাফির ব্যবস্থাপনায় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক মুহম্মদ জাফর ইকবাল উত্তর দিয়েছেন ভক্তদের অসংখ্য কৌতূহলী প্রশ্নের আর জানিয়েছেন নানান মজার অভিজ্ঞতার কথা।একের পর এক নানান অভিনব প্রশ্ন আর অসংখ্য মজার গল্পের প্রাণবন্ত উত্তর দিয়েছেন প্রিয় লেখক জাফর ইকবাল। কখনো প্রশ্নোত্তরের দেয়াল ডিঙিয়ে আড্ডা আর গল্পেও মেতে উঠেছিল লেখকের সাথে। অত্যন্ত ধৈর্যের সাথে তরুণ পাঠক-ভক্তদের প্রতিটি কথার উত্তর দিয়েছেন কথাসাহিত্যিক মুহম্মদ জাফর ইকবাল । প্রিয় লেখকের হাতছোঁয়া দূরত্বে পেয়ে পাঠক-ভক্তদের আনন্দও যেনো বাঁধা মানছিলোনা। শুধুমাত্র প্রশ্নোত্তরের মধ্যেই এই অনুষ্ঠান সীমাবদ্ধ ছিলোনা, উপস্থিত অন্যান্য অতিথিরাও নিজেদের মজার মজার অভিজ্ঞতা ও গল্পে সমবেতদের মুগ্ধ করেন । অভিনব সব প্রশ্নের জন্য ছিলো আকর্ষণীয় পুরষ্কারও। শব্দকল্পদ্রুম উদ্যাপন পরিষদের সমন্বয়ক মিল্টন দাশ বিজয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত “কথোপকথন” অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য ওয়াসিকা আয়েশা খান, বাংলাদেশ মেরিন একাডেমীর কমান্ড্যেন্ট নৌ প্রকৌশলী ড. সাজিদ হোসেন, বিজিএমইএ’র প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতি নাছির উদ্দিন চৌধুরী, সাউথ এশিয়ান কলেজের সিইও আব্দুল্লাহ আল মামুন, বি.স্ক্যানের সভাপতি সাবরিনা সুলতানা, মানবাধিকার সংঘঠক আমিনুল হক বাবু প্রমুখ।
আবৃত্তিকার সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠক নোমান উল্লাহ বাহার। আলোচনায় অংশ নিয়ে ড. জাফর ইকবাল বলেন, তরুণদের স্বপ্ন দেখতে হবে। পৃথিবীতে যারা স্বপ্ন দেখে এবং আশাবাদী তারাই বড় বড় ব্যক্তিত্বে পরিণত হয়েছেন। আশাবাদীরাই নিত্য নতুন উদ্ভাবনের মাধ্যমে পৃথিবীকে জয় করতে সম হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের প্রেরণায় স্ব-স্ব অবস্থান থেকে দেশ গড়ার কাজে তোমাদের ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। সংসদ সদস্য ওয়াসিকা আয়েশা খান বলেন, জাফর ইকবাল স্যার তরুণদের প্রেরণার উৎস। তার লেখালেখি ও সক্রিয়তা অনুসরণ করে অপসংস্কৃতির বৃত্ত ভেঙ্গে তোমাদেরকেই গড়তে হবে সমৃদ্ধ ভবিষ্যৎ। বিজিএমইএ’র প্রাক্তন প্রথম সহ-সভাপতি নাছির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, তথ্য প্রযুক্তির ছোয়ায় পুরো বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয়। তথ্য প্রযুক্তির সর্বাধিক সদ্ব্যব্যবহারে তোমাদের প্রাগ্রসর ভূমিকা রাখতে হবে। ড. সাজিদ হোসেন বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মত একটি গৌরবান্বিত অধ্যায়কে এক সময় গন্ডগোল বলে আখ্যায়িত করা হত। মুক্তিযুদ্ধকে তরুণ প্রজন্মসহ বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ের মনিকোঠায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে উদ্ভাসিত করতে জাফর ইকবালের ভূমিকা অগ্রগণ্য।